১লা অক্টোবর, ২০২০ ইং | ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | সকাল ৬:১৯

দেশে করোনায় নতুন রোগী শনাক্ত হয়নি: আইইডিসিআর

দেশে করোনাভাইরাসে নতুন করে আর কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। ফলে (কোভিড-১৯) এ আক্রান্তের সংখ্যা এখন পর্যন্ত তিনজনই আছে বলে জানান তিনি।

সোমবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে রাজধানীর মহাখালীর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আইডিআরএ সম্মেলন কক্ষে নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান সেব্রিনা ফ্লোরা।

আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, ‘গতকাল বিকাল পাঁচটা থেকে এ পর্যন্ত হটলাইনে ৫০৯টি ফোন পেয়েছি আমরা। এর মধ্যে ৪৪৯টি করোনাভাইরাস সংক্রান্ত। পরে চারজনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে এদের কারও মধ্যেই করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। তার মানে এ পর্যন্ত সর্বমোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা তিনজনই।’

বিশ্বে আতঙ্ক সৃষ্টি করা করোনাভাইরাস আক্রান্ত তিনজন বাংলাদেশি রোগীর শনাক্তের ঘোষণা আসে গতকাল রবিবার। তিনজনের মধ্যে দুজন ইতালি থেকে সম্প্রতি দেশে ফিরেছেন। তাদের কাছে থেকে একজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্ত তিনজনের মধ্যে দুজন পুরুষ ও একজন নারী।

এই পরিস্থিতিতে করোনা আক্রান্ত বা এই সংক্রান্ত যেকোনো কারণে সবাইকে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানিয়েছেন আইইডিসিআর পরিচালক। সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, ‘করোনা আক্রান্তদের ঘরের ভেতরে থাকার সুযোগ না দিলে বা সহযোগিতা না করলে রোগ ছড়িয়ে সবাইকে সংক্রমণ করতে পারে।’

সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, ‘বিদেশ থেকে এলেই কাউকে করোনা আক্রান্ত এমন ভাবার কোনো কারণ নেই। তবে, অবশ্যই তিনি আসার পর ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন বা নিজের বাড়িতেই সাবধানে থাকবেন।’

আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, ‘ইতালি ফেরত দুজনের মধ্যে যেহেতু করোনা শনাক্ত হয়েছে সেহেতু বিদেশ ফেরত যদিও সংক্রমিত হয়ে থাকেন তারা যদি বাইরে ঘোরাফেরা করেন তাহলে এটা ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই বিদেশ থেকে কেউ এলে অবশ্যই বাড়িতে অন্তত ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এসময় বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এদিক সেদিক ঘোরাফেরা করলে প্রতিবেশীদের স্মরণ করিয়ে দিতে হবে যে তিনি কোয়ারেন্টাইনে আছেন। ‘

করোনা আক্রান্তদের নিয়ে অন্যদের আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দেন সেব্রিনা। তিনি বলেন, ‘বিদেশ থেকে এসে যারা বাড়িতে যাচ্ছেন বা বাড়ির মালিকরা ভাড়াটিয়াদের সঙ্গে বাজে আচরণ করবেন না। কারণ, তারা বাইরে থাকলে এটি ছড়িয়ে যাবার আশঙ্কা বেড়ে যাবে।’

করোনা ইস্যুতে সবাইকে সহযোগিতার মনোভাব রাখার আহ্বান জানান সেব্রিনা ফ্লোরা।

এ সময় তিনি গণমাধ্যমকে করোনা আক্রান্তদের পরিবারকে বিরক্ত না করার অনুরোধ জানান। বলেন, ‘করোনা শনাক্ত হওয়া রোগীদের আইডি প্রকাশ না করতে গণমাধ্যমকেও অনুরোধ জানাচ্ছি। এতে আক্রান্ত ও তার পরিবার হয়রানি থেকে রক্ষা পাবে।’

এদিকে করোনাভাইরাস সম্পর্কে সতর্ক করে গতকাল তথ্য বিবরণী প্রকাশ করেছে সরকারের তথ্য অধিদপ্তর (পিআইডি)। এতে করোনাভাইরাস সম্পর্কে অহেতুক আতঙ্কিত না হয়ে বরং তা প্রতিরোধে সতর্কতা অবলম্বনের জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলা হয়েছে, এ রোগের কোনো উপসর্গ যেমন-জ্বর, গলাব্যথা, শুকনো কাশি, শ্বাসকষ্ট, শ্বাসকষ্টের সঙ্গে কাশি দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। জনবহুল স্থানে চলাফেরার সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে এবং পোষা প্রাণীর সংস্পর্শ পরিহার করতে হবে। বাড়িঘর পরিষ্কার রাখতে হবে। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে এবং খাওয়ার আগে সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে। খাবার ভালোভাবে সেদ্ধ করে খেতে হবে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে সন্দেহ হলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কন্ট্রোল রুমের হটলাইন ০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০৯১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪ ও ০১৯২৭৭১১৭৮৫ নম্বরে যোগাযোগের জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাস সম্পর্কে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বা অন্য কোনোভাবে কোনো মিথ্যা কিংবা ভুল তথ্য প্রচার নজরে এলে তথ্য অধিদপ্তরের সংবাদকক্ষের ফোন নম্বর ৯৫১২২৪৬, ৯৫১৪৯৮৮, ০১৭১৫২৫৫৭৬৫, ০১৭১৬৮০০০০৮ এবং ই-মেইল piddhaka@gmail.com/piddhaka@yahoo.com অথবা ৯৯৯-এ যোগাযোগ করার জন্য সর্বসাধারণের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে।

 

প্রকাশ :মার্চ ৯, ২০২০ ৩:১৪ অপরাহ্ণ