৩রা আগস্ট, ২০২০ ইং | ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৫:২৯

শৈত্যপ্রবাহে কাঁপছে উত্তরের জনপদ

দেশের উত্তরাঞ্চলের বেশ কিছু জেলায় আবার শুরু হয়েছে শৈত্যপ্রবাহ। কনকনে ঠান্ডা ও ঘন কুয়াশার কারণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে এসব এলাকার জনজীবন।

আজ বুধবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

চট্টগ্রাম ও বরিশাল ছাড়া বাকি ছয়টি বিভাগের বিস্তৃত এলাকাজুড়ে মৃদু ও মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। ভোর থেকেই কুয়াশার চাদরে মোড়া থাকছে চারপাশ। এতে সড়ক, নৌ ও আকাশ পথে চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুটে বিঘ্নিত হচ্ছে ফেরি পারাপার।

কোথাও কোথাও দুদিন ধরে দেখা মিলছে না সূর্যের। এতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। বিশেষ করে নদ-নদী বেষ্টিত জনপদের মানুষ পড়েছেন বেকায়দায়। হাসপাতালগুলোতে বাড়ছে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া আক্রান্তের সংখ্যা।

এদিকে রাজধানীতে গত দুদিন তাপমাত্রা কিছুটা কমলেও শীতের তীব্রতা তেমন বাড়েনি। আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, শৈত্যপ্রবাহ আরও ব্যাপকভাবে বিস্তৃত হওয়ার শঙ্কা না থাকলেও তিন চারদিন অব্যাহত থাকতে পারে।

অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ বলেন, ‘বেশ কিছু এলাকায় শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়েছে। বুধবার আরও কিছু এলাকায় শৈত্যপ্রবাহ শুরু হতে পারে, তবে ব্যাপকভাবে শুরু হওয়ার শঙ্কা নেই। তাপমাত্রাও বেশি কমার সম্ভাবনা নেই। এই শৈত্যপ্রবাহ তিন-চারদিন অব্যাহত থাকতে পারে।’

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর বিভাগসহ বিভিন্ন অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তা অব্যাহত থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। সারা দেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে।

প্রকাশ :জানুয়ারি ২২, ২০২০ ১২:১৩ অপরাহ্ণ