২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৩:২৬

হাসন রাজার ১৬৫তম জন্মবার্ষিকী আজ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : হাওর-বাওড় ও মেঘালয় পাহাড়ের পাদদেশের জেলা সুনামগঞ্জ ‘হাসন রাজার দেশ’ হিসেবেই পরিচিত। মরমী সাধক ও আধ্যাত্মিক কবি দেওয়ান হাসন রাজার ১৬৫তম জন্মবার্ষিকী আজ শনিবার(২১ ডিসেম্বর)। হাসন রাজার গানে সহজ সরল স্বাভাবিক ভাষায় মানবতার চিরন্তন বাণী যেমন উচ্চারিত হয়েছিল। সকল ধর্মের বিভেদ অতিক্রম করে তিনি গেয়েছেন মাটি ও মানুষের গান। তাই তিনি এখনো বেঁচে আছেন সুনামগঞ্জের মাটি ও মানুষের মাঝে।

লোভ লালসার বাইরে থেকে সহজ সরল জীবন যাপনে রচনা করে গেছেন অসংখ্য লোকগান। মরমী এই সাধকের জন্ম-মৃত্যুতে বরাবরই খুব একটা আয়োজন থাকে না সুনামগঞ্জে। তবে এবছর জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকী একসঙ্গে পালন করবে জেলা শিল্পকলা একাডেমী ও হাসন রাজা ট্রাস্ট।

১৮৫৪ সালের ২১ ডিসেম্বর সুনামগঞ্জ শহরের লক্ষণশ্রীর ধনাঢ্য জমিদার পরিবারে জন্ম নেওয়া মরমী সাধক হাসন রাজা জীবদ্দশায় প্রায় ২০০ গান রচনা করেছেন। ১৯২২ সালের ৬ ডিসেম্বর মৃত্যুবরণ করেন তিনি। তার স্মৃতি ধরে রাখা হাসন রাজা মিউজিয়ামে অনেকেই আসেন দূর-দূরান্ত থেকে। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরও ১৯২৫ সালে কলকাতায় এবং ১৯৩৩ সালে লন্ডনে হিবার্ট বক্তৃতায় হাসন রাজার দুটি গানের প্রশংসা করেছিলেন। কিন্তু প্রখ্যাত এই মরমী সাধকের জীবন-দর্শন ও গানের চর্চা এখন আর প্রাতিষ্ঠানিকভাবে হয় না বললেই চলে।

মরমী সাধক হাসনরাজার জীবন দর্শন নিয়ে গবেষণার সুযোগ দেয়া দাবি সাংস্কৃতিক কর্মীদের।

আশরাফুল ইসলাম, সুমন, সাকুরা আক্তার সুমাসহ অনেকই বলেন, মরমী সাধকের রাজধানী সুনামগঞ্জ। কিন্তু দুঃখের বিষয়, মরমী কবিদের সৃষ্টিকর্ম জীবনদর্শন নিয়ে গবেষণা করার সুযোগ সুনামগঞ্জে নেই। আগামী প্রজন্ম মরমী কবিদের নিয়ে জানার জন্য গবেষণা ও চর্চার ব্যবস্থা করা দরকার।

সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব অনিশ তালুকদার বাপ্পু বলেন, হাসন রাজা একজন জমিদার হয়েও সাধারণ জীবনযাপন করে সাধারণ মানুষের জন্য গান লিখেছেন। এখনো হাসন রাজার গান নিয়ে সুনামগঞ্জে তেমন কোনো চর্চা হচ্ছে না। ফলে হাসন রাজা সম্পর্কে বর্তমান যুগে অনেকেই অনেক কথা জানে না।

হাসন রাজা ট্রাস্টের উদ্যোগে জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজনের কথা জানান হাসন রাজা জন্মবার্ষিকী উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক দেওয়ান গিয়াস চৌধুরী। তিনি বলেন, আমরা জন্ম ও মৃত্য দিবস উপলক্ষ্যে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, হাসন রাজার ছবি আঁকা প্রতিযোগিতাসহ নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছি।

মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেন, হাসন রাজাসহ সুনামগঞ্জের মরমী সাধকদের জীবনদর্শন নিয়ে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। জেলা শিল্পকলার উদ্যোগে এই অনুষ্ঠান হবে।

প্রকাশ :ডিসেম্বর ২১, ২০১৯ ১:৫৯ অপরাহ্ণ