২২শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৭ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ৪:২৯

বগুড়া-৬ আসনে উপ নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী জিএম সিরাজ

অনলাইন

জাতীয় সংসদের ৪১, বগুড়া-৬ ( সদর ) আসনের উপ নির্বাচনে বিএনপির চুড়ান্ত প্রার্থী বগুড়া-৫ আসনের সাবেক এমপি গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ। বুধবার দুপুরে বগুড়া শহরের সুত্ররাপুরস্থ চম্পামহলের জ্যোতি হলে বিএনপির প্রধান নির্বাচনী অফিসে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেয়া হয়। সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও বগুড়া-৬ সদর আসনের উপ নির্বাচনে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বলেন, দলের হাইকমান্ড আমাকে ধানের শীষ প্রতিক বরাদ্দের চিঠি নেয়ার আমন্ত্রণ জানিয়েছে। আমি ওই চিঠি দু’একদিনের মধ্যে গ্রহণ করে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে জমা দেব। তিনি বলেন, কারাবন্দি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে বিএনপি এই নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করছে। বগুড়ার জনগণ আবারো ধানের শীষের প্রার্থিকে জয়ী করবে। দলীয় কোন কোন্দল নেই। কয়েকজন বিপদগামী নেতাকর্মী মিথ্যাচার করছে। তাদেরকে আজকের মধ্যে (বৃধবার) সংশোধন হওয়ার সময় দেয়া হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে তারা সংশোধন হয়ে বিএনপির বর্তমান কমিটির সাথে কাজ করবে বলে আশা করি। তিনি বলেন, বগুড়া সদর আসনে আমরা সুষ্ঠু , অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন চাই। কিন্তু ইভিএম এর কারচুপি চাই না। ইভিএম-এ ভোট প্রদান করা সহজ। কিন্তু ইভিএম এর সফটওয়্যার থাকবে সরকারের নিয়ন্ত্রণে। ইভিএম নিয়ে আমাদের সন্দেহ আছে। আমার ধারণা, সরকার বিতর্কিত ইভিএম ব্যবস্থা জায়েজ করতেই বগুড়ার নির্বাচনে ব্যবহার করছে। এতে সরকার দেখাতে চায়, ধানের শীষ বিগত নির্বাচনের চাইতে আরো বেশি ভোট পেয়েছে।

তিনি দলের বিষয়ে বলেন, গত ১৫ মে বগুড়া জেলা আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার পর থেকে কয়েকজন চাইছে বগুড়ায় বিএনপির মধ্যে ফাটল ধরাতে। তারা নিজেদের মধ্যে সমস্যা সৃষ্টি করে মামলা হামলার মধ্যে দিয়ে বিএনপিকে দাবিয়ে রাখতে চায়। কিন্তু আমরা সে সুযোগ দিতে চাই না। এক প্রশ্নের জবাবে সিরাজ বলেন, দলীয় কার্যালয়ে যারা তালা দিয়েছে তারাই সে তালা খুলবে এটা আমি লিখে দিতে পারি। তিনি এ সময় আহ্বায়ক কমিটি বিরোধীদের সম্পর্কে বলেন, তারা মামলায় জজর্রিত। অনেকে জেল জুলুমের শিকার হয়েছেন। তাই তাদের ত্যাগ আমরা অসম্মান করতে পারি না। তবে কমিটির সাথে কাজ না করলে তাদের জন্য কঠিন শাস্তি অপেক্ষা করছে। আমরা ৫-৬ মাসের মধ্যে জেলা বিএনপির একটি সুন্দর কাউন্সিল উপহার দিতে ২৩ টি সাংগাঠনিক থানা কমিটি ভেঙ্গে দেয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন, সিনিয় যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলাম, সাবেক এমপি হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশা, বিএনপি নেতা আলী আজগর তালুকদার হেনা, মাহবুবর রহমান বকুল, এম আর ইসলাম স্বাধীন, কেএম খায়রুল বাশার, মাফতুন আহম্মেদ খান রুবেল, ওমর ফারুক খান, সহিদ উন নবী ছালাম, শামীমা আক্তার পলিন, মনিরুজ্জামান মনি প্রমুখ।

আগামী ২৪ জুন বগুড়া সদর আসনে ১৪১টি কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহার করে ভোট গ্রহণ করা হবে। বিএনপির সিরাজের প্রতিদ্বন্দি আওয়ামী লীগের টি জামান নিকেতা, জাপার নূরুল ইসলাম ওমরসহ ৮ জন। আগামী ৩ জুন প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। এরপরই ‍চূড়ান্ত প্রার্থী জানা যাবে।

প্রকাশ :মে ৩০, ২০১৯ ৯:০১ পূর্বাহ্ণ